Skip to content Skip to sidebar Skip to footer

এলজিবিটি বিদ্বেষী বক্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া

লেখক: আদনান

 

বাংলাদেশের একজন আলেম এর বয়ান শুনে সপ্তাহ দুয়েক আগে বিষয়টা নিয়ে লিখতে চেয়েছিলাম। কিন্তু সম্ভব হয় নি।

আলেম সাহেব আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে নিজের নামকরন করেছেন। যদিও বাংলাদেশের সুপ্রতিষ্ঠিত  বিশ্ববিদ্যালয়  কিংবা ওয়ার্ল্ড র‍্যাংকিং এর ৭৩ তম বিশ্ববিদ্যালয়ে শুধু আমি না, আরও অনেক বাংলাদেশী পড়াশুনা করেছেন,  করছেন। কোনদিন আমরা কেউ বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে নিজেদের নামকরন করি নি। এটা আর কেউ করে বলে কখনো শুনিও নি। যদি বাংলাদেশের বহু ভন্ডরা তাদের অন্ধ সমর্থকদের বোকা বানাতে অহরহ অনেক এলাহী হাস্যকর কাজ করছে, করে। এদের লক্ষ্যবস্তু শিক্ষিত সমাজ নয়, এদের লক্ষবস্তু অশিক্ষিত, ধর্মভীরু, ধর্মান্ধ  সমাজ।

সেই জনাব এলজিবিটিকিউ এবং সমকামিতা নিয়ে তার অজ্ঞাতবাস জ্ঞানে যা তা বললেন। তার কথাগুলোর যুক্তিখন্ডন করতেই এই লেখা

প্রথমত তিনি বলেছেন, “এসব কোন স্বাভাবিক ব্যাপার নয়”। এগুলো মানুষের সৃষ্টি। তিনি কি জানেন কখনোই যৌনকাজে অংশগ্রহন করেনা এরম কিছু সামুদ্রিক  প্রানী ব্যতীত সকল স্পেসিসের মাঝেই উভকামি আচরনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে? এমনকি Japanese Macaques, Red flour beetles, Laysan albatrosses, Bonobos এদের মাঝে সমকামিতা প্রবল আকারে দেখা যায়। তাছাড়া বহু কুকুর, বানর, ভেরা, সিংহ, গরু, ঘোড়াসহ ১৫০০-র বেশি প্রাণির মাঝে অহরহ সমকামিতা, উভকামিতা দেখা যায়। যদিও তাদেরকে বোরখা পরিধানেরর হুকুম দেয়া হয়নি।

দ্বিতীয়ত তিনি বলেছেন, “এগুলো পশ্চিমা ইহুদী খ্রীষ্টানদের সৃষ্টি”। হাস্যকর!  ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি তো ইহুদী আর খ্রীষ্টান ধর্মের ফটোকপি ও বর্ধিত ভার্সন। আব্রাহামিক সবকটা ধর্মই সমকামিতা নিয়ে বিরোধিতা করেছে। ইতিহাস না জেনে মনগড়া মন্তব্য করা অবশ্য এসব অর্বাচীন লোকজনের অভ্যাস, যেমনটা এন্টারকটিক নিয়ে কিছুদিন আগে একজন বলেছেন। তো ইসলাম ধর্মের বহু বিধিনিষেধ তো তাদের পূর্ববর্তী  ইহুদী আর খ্রীষ্টানদের অনুসরন করেই লেখা। তিনটি ধর্মেই জাজকরা পাথর মেরে, আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ফতোয়া দেয়। তাছাড়া ইহুদী বা খ্রীষ্টান ধর্ম কোনটারই উৎস কিন্তু ইউরোপে আমেরিকায় না। তিনটি আব্রাহামিক ধর্মই কিন্তু আরব বা মধ্যপ্রাচ্য থেকে এসেছে।

তৃতীয়ত সমকামিতা, উভকামিতা নাকি আজকালকার অশ্লীলতার সৃষ্টি। জনাব. আজকালকার মানুষ অশ্লীল হলে কাপড় আবিষ্কারের পূর্ববর্তীরা কি শ্লীল ছিল? তো এটা আজকালকার এবং ইউরোপের সৃষ্টি হলে ১৪০০ বছর পূর্বে ইসলামের প্রচারকরা কেন এসব বিষয়ে ফতোয়া দিয়েছেন?  আপনি বলেন কোরআনে নাকি এ বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা  আছে তাহলে কোরআন ও কি ইউরোপ আমেরিকার প্ররোচনায় লেখা হয়েছে?

চতুর্থত তিনি বলেছেন, ট্রান্সজেন্ডার নাকি নোংরামি, যৌনতার প্র্যাকটিস। কি আশ্চর্য আপনি দেখি মানসিক স্বাস্থ্য  বলতে কিছুই জানেন না। বায়োলজিক্যাল  লিঙ্গ নিয়ে জন্মানো আর আত্মউপলোব্ধি এক নয়। একহলে তথাকথিত ছেলে শিশু হয়ে জন্ম নেয়া বাচ্চাটা বড় হয়ে হিজরা কি করে হয়?  আপনি শারীরিক লিঙ্গপরিচয়বহনকারী অঙ্গের হিসেবে সেটা মানতে পারেন অথচ মানসিক পরিচয়টাকে অস্বীকার করলেন?

এরপর আপনারা অনেকে শিশুকামকে সমকামী/উভকামিতার সাথে মিলিয়ে নিয়েছেন। একটু পড়াশুনা করেন। কাম শব্দটার জন্যই সব এক ব্যাপার নয়। তাহলে তো বিষমকামী শব্দেও কাম রয়েছে। ওটাও কি শিশুকাম? বিষমকামিতা, স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক  কি কেবলমাত্র যৌন-মিলনেই সীমাবদ্ধ? আপনি আপনার স্ত্রীকে বা আপনার স্ত্রী কি আপনাকে শুধু সেক্স করার জন্য বিয়ে করেছে?  নিশ্চয় না। তাহলে পরিষ্কার জেনে রাখুন সমকামিতাও শুধু যৌনতা নয়। ওটাও ভালোবাসা, আবেগে ভরপুর। আর শিশুকাম মানে একজন শিশুকে ধর্ষন করা। একটা বাচ্চার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বা তাকে ভয়/প্রলোভন দেখিয়ে তার সাথে যৌনকর্ম করা কখনোই সমর্থন যোগ্য নয়। আর এ ব্যাপারটা কখনোই সমকামিতা/উভকামিতার বিষয় নয়। দুজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের ভালোবাসাকে একটা ধর্ষনের সাথে মেলাবেন না ।

যাকগে কথা হলো, সমকামিতা, উভকামিতা এসব কেবল যৌন সম্পর্কের বিষয় নয়। ভালোবাসার বিষয়। ভালোবাসাকে ধর্মের কোথায় নিষিদ্ধ  করা হয়েছে আমি জানি না। আর সবকিছুর পরেও মানলাম কেউ সমকামী, উভকামী বা রুপান্তরকামী। তো তাতে আপনার সমস্যা কি? কেন তাদের মারতে হবে? কেন তারা তাদের অধিকার ও নিরাপত্তা চাইলে আপনারা মুর্খের সমাবেশে চিল্লায়ে তাদের নিষিদ্ধ  করতে চান? হত্যা করতে চান? আপনারই তো বলেন রিযিকের মালিক একজন।  সে একজন যদি সমকামী, উভকামী, রুপান্তরকামী বানাতে পারে, পৃথিবীতে পাঠাতে পারে, তবে আপনারা কারা তাদের হত্যা ও নিষিদ্ধের আওয়াজ তোলার?  আপনারা তো হাওয়া আদমকে নিষিদ্ধ ফল খাইয়েছিল বলে নারীদের শয়তানের দরজা বলে পরিচয় করিয়েছিলেন। তাই বলে কি নারীরা নিষিদ্ধ  হয়েছে? এখন ২০২১ চলে। বর্বরতা পরিহার করুন। যার যার ব্যক্তিজীবন নিয়ে সুখী থাকতে দিন। এই ধর-মার-কাট ছেড়ে মানুষ হোন। মানবতার ধর্ম যাকে বলেন তাকে অমানবিকতা থেকে মুক্তি দিন। আপনার ভালো না লাগলে এড়িয়ে চলুন।

আমাকে আপনার ভালো লাগাতে হবে না, ভালোবাসতেও হবে না। আমাকে আমার মতো করে থাকতে দিন, বাঁচতে দিন। জীবনটা আমার,  কোন রঙে রাঙ্গাবো সেটাও একান্ত আমার ইচ্ছা। আমাকে আপনার বিষাক্ত জবানীতে নিষিদ্ধ  করে আমার পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করবেন না। বিজ্ঞান জানুন। নিজের মতাদর্শ  চাপিয়ে দিবেন না। প্রচার করতে পারেন তবে সেটা কখনোই কাউকে আঘাত দিয়ে নয় কিংবা আঘাত করতে নয়।  আমি সমকামী, আমি উভকামী, আমি রুপান্তকামী। সবার উপর আমি মানুষ। আমার জিবন আমার স্বীদ্ধান্ত।

What's your reaction?
0Smile0Angry0LOL0Sad4Love

Add Comment