Skip to content Skip to sidebar Skip to footer

সমলিঙ্গের বিবাহ বৈধতা না দেয়া অসাংবিধানিক : রায় জাপানের আদালতের

জি-৭ ভুক্ত দেশ জাপান । জি-৭ এর দেশগুলোর মধ্যে জাপানই একমাত্র দেশ যেখানে সমলিঙ্গের বিয়ে বৈধ নয়। তবে পৌরসভাগুলো সমলিঙ্গের দম্পতিদের পার্টনারশিপ সার্টিফিকেট দেয়। তাতে সমলিঙ্গে বিয়ে হওয়া জুটির বাড়ি ভাড়া করা বা চিকিৎসার সুবিধা পেতে কোনও অসুবিধা হয় না। কিন্তু তারা এখনও অন্যদের মতো পুরো আইনি অধিকার পান না। অনেক অধিকার থেকে তারা বঞ্চিত। এসবের অবসান চেয়ে এবং সমলিঙ্গের বিয়েকে বৈধতা দিতে সরকারকে বাধ্য করার জন্য ২০১৯ সালে ভালোবাসা দিবসে ১৩ সমকামী জুটি বিভিন্ন আদালতে মামলা করেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জাপানের সংবিধানে সংজ্ঞায়িত করা হয় বিয়ে হলো- উভয় লিঙ্গের মধ্যকার সম্মতির ভিত্তিতে বিয়ে। ফলে সমকামীরা বিবাহের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়ে ছিল । কিন্তু বুধবার (১৭ মার্চ) সাপোরোর আদালত প্রথম মামলার রায় দিয়েছে যে, দম্পতিদের সমঅধিকারের যে নিশ্চয়তা সংবিধান দেয়, সমলিঙ্গের বিয়ে অবৈধ রাখার ফলে এই নিশ্চয়তা অস্বীকার করা হচ্ছে। তাই সমলিঙ্গের বিবাহের বৈধতা না দেয়া অসাংবিধানিক ।

এই রায়ে উল্লসিত বলে জানিয়েছেন মামলা দায়েরকারী ছয় দম্পতি। আবেদনকারীরা আদালতে ক্ষতিপূরণও দাবি করেছিলেন। তাদের যুক্তি ছিল, আইনসঙ্গতভাবে বিয়ে করতে না পেরে তারা যে মানসিক বেদনার মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন, তার জন্য সরকারকে প্রত্যেককে দশ লাখ ইয়েন ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আদালত অবশ্য এই দাবি মানেনি।

তবে মামলাকারীরা জানিয়েছেন, তাদের বিয়ে করতে না দেওয়ার বিষয়টিকে আদালত অসাংবিধানিক বলেছে, এটাই তাদের বড় জয়।

বাদীদের মধ্যকার একজন আই নাকাজিমা বলেন, ‘এটি জাপানে একটি বড় পদক্ষেপ…আমাদের স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করতে আমরা আরও কাছাকাছি পৌঁছাচ্ছি।’

জাপান সরকারের দাবি, সংবিধানে সমলিঙ্গ বিয়েকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। কিন্তু আইনজ্ঞদের মতে, দুইজনের সম্মতিতে বিয়ের কথা সংবিধানে বলা হয়েছে। তাই সমলিঙ্গের দুই জন যদি বিয়ে করতে সম্মত হন, তা হলে তাদেরও বাধা দেওয়া উচিত নয়।

উল্লেখ্য যে জাপানের অন্যান্য জায়গায় এই ধরনের আরও চারটি মামলা চলছে।

সূত্র:  BBC

What's your reaction?
0Smile0Angry0LOL0Sad0Love

Add Comment